Like Father, Like Son (2013) Bangla Subtitle || মুভি রিভিউ


Bangla Subtitle Available:
🎬 Like Father, Like Son (2013)
📁 Not Rated | 121 min | Drama
📁 Director: Hirokazu Kore-Eda
🌟 IMDb: 7.8🔥
💯 Rotten Tomatoes: 87%
💯 Metacritic: 73%

𝗟𝗶𝗸𝗲 𝗙𝗮𝘁𝗵𝗲𝗿, 𝗟𝗶𝗸𝗲 𝗦𝗼𝗻:
𝗔 𝘁𝗵𝗼𝘂𝗴𝗵𝘁 𝗽𝗿𝗼𝘃𝗼𝗸𝗶𝗻𝗴 𝗳𝗶𝗹𝗺 𝘄𝗶𝘁𝗵 𝗮 𝘃𝗲𝗿𝘆 𝗱𝗲𝗹𝗶𝗰𝗮𝘁𝗲 𝘀𝘂𝗯𝗷𝗲𝗰𝘁 𝗿𝗲𝗴𝗮𝗿𝗱𝗶𝗻𝗴 𝗽𝗮𝗿𝗲𝗻𝘁𝗵𝗼𝗼𝗱. "𝗔 𝗠𝗨𝗦𝗧 𝗪𝗔𝗧𝗖𝗛."

Bangla Subtitle Download Links:
https://subscene.com/subtitles/like-father-like-son-soshite-chichi-ni-naru/bengali/2139814

𝗡𝗼 𝗦𝗽𝗼𝗶𝗹𝗲𝗿
বাবা আমার কর্পোরেট দুনিয়ার মেগাস্টার। সারাদিন কেবল কাজের পেছনেই ছুটে চলেছেন। খুব ভোরে উঠেন ঘুম থেকে আবার ঘুমানো সবার পরে। মনে হয় সৃষ্টিকর্তার দেয়া দিনটা সবচেয়ে বড় তার জন্যেই তবুও সে দিনের একটা অংশে তিনি আমাকে দিতে পারেন না। নিজের ডেইলি রুটিনের একটা ঘরে আমার নাম লিখা থাকে না। তবুও তিনি তো আমার বাবা। আমার জীবনের সবচেয়ে বড় আশ্রয়।

আবার সে বাবাই আমাকে দেখতে চায় তার মতোই সফলতার চূড়ায়। সমসাময়িক সবকিছুতে দেখতে চায় সবার আগে আমাকে। চায় সকল বাঁধাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে কঠোর পরিশ্রমে নিজের ভাগ্য গড়ি। কিন্তু সে সকল আশাতেই পানি ফেলে দিচ্ছি আমি। বাবার স্বপ্নের বীজ উপড়ে ফেলছি জীবন নামের শস্যক্ষেত্র থেকে। তবুও আমিতো তার সন্তান। তার জীবনের সবচেয়ে বড় অবলম্বন।
তবে হঠাৎই যদি সে বাবা জানতে পারে আদতে আমি তার সন্তানই না! আগমনের পর মূহুর্তে নিজ সন্তানের সাথে অদল বদল হয়ে গেছে অন্য কারো সন্তান! তখন? মনে কি জাগবে না সে "Like Father, Like Son" এর কনসেপ্ট টা? ভাববে না হয়তো আমার সন্তান নয় বলেই আমাদের মধ্যে এত পার্থক্য! মনের অবচেতনে জাগ্রত এই দোটানায় কখন যে এতদিনের ভালোবাসাটাই ফিকে পড়ে যায় বোঝাই দায়। ইচ্ছে হয় অপ্রত্যাশিত সেই ভুলকে শুধরে নিই। এবার নিজের সন্তানকে কাছে টানি। তবে জীবনের এতগুলো মুহূর্ত যে ভুলকে ঘিরে কাটিয়েছেন তাকে কি চাইলেই শুধরে দেয়া যায়? যাই হোক যাকে শুধরে নিতে চাচ্ছেন সে তো দোকানের কোন খেলনা নয়। একটা রক্ত মাংসে গড়া মানুষ। আপনি তাকে ফিরিয়ে দিলেই কি তার কোমল হৃদয় আপনার দিকে ফিরে চাইবে না? এত স্নেহ মমতা আর মায়ার বাঁধনকি কেবল অভিযোজনের দোহাই দিয়ে ছিন্ন করা সম্ভব?

এমনি এক কম্প্লেক্সিটিকে ঘিরে এক মন ছুঁয়ে যাওয়া সিনেমার সৃষ্টি করেছেন জাপানিজ মাস্টারক্লাস ফিল্ম ডিরেক্টর হিরোকাজু কোরি-এদা। পুরো সিনেমা জুড়ে এক অসাধারণ বিষাদময় অ্যাটমোস্ফিয়ার ঘিরে ছিল যা শেষে গিয়ে ধারণ করেছে চূড়ান্ত রূপ। কখন যে চোখের কোণে জল জমে গেছে টেরই পাইনি। যেমন সুন্দর এ সিনেমার প্লট তেমনি সুন্দর এর উপস্থাপনা। অভিনয় কিংবা সিনেম্যাটোগ্রাফিতে প্রশ্ন তোলার কোন অবকাশ নেই। ডায়লগ ডেলিভারিও ছিল বেশ সাবলীল। গোটা বিষয়টাকে সাজানো হয়েছে নাটকীয়তার মিশ্রণে।

প্রকৃতপক্ষে কিছু সিনেমাকে আসলে কেবল সিনেমার জায়গায় রাখা যায় না। এসব সিনেমা মুঠোফোন কিংবা পিসির স্ক্রিনে যতটানা সুন্দর বাস্তবে তার বাস্তবিকতাও ঠিক ততটাই চিন্তা উদ্রেককারী। এসব সিনেমা আপনার দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে দিবে, পুরোনো জিনিসকে আবার নতুন করে দেখতে শেখাবে। যেমনটা কোরে-এদা চমৎকার ভাবে দেখিয়েছেন নিজের গুণে নিজের সন্তানকে গুণান্বিত দেখতে চাইলে কেবল নিজের দেয়া জিনের উপর আস্থা রাখলেই চলবে না। তাকে বুঝতে হবে, সময় দিতে হবে, সর্বোপরি তাকে নিজের মতো করে তৈরি করতে হবে। তবেই না সে আপনার মতো হবে। তবেই না লোকে বলবে,
"𝗟𝗶𝗸𝗲 𝗙𝗮𝘁𝗵𝗲𝗿, 𝗟𝗶𝗸𝗲 𝗦𝗼𝗻."

#MovieFreakBlog

Post Author: Ahtab Jamil Mahin

Post a Comment

0 Comments